“শপথ দিলাম তোরে ” – – – – – – – – – – – – – – – – পীযূষ কান্তি দাস – – – – – – – – – – – – – – – – – – – – – – – – যা পাখি উড়িয়ে দিলাম তোরে, রাখবো না আর খাঁচায় বন্দী করে । উড়াল দে তুই দে রে মেলে পাখা, জেনে গেছি আর যাবে না তোকে বেঁধে রাখা ॥ ভালোবাসার শিকল দিলাম খুলে , দুঃখ যদি দিয়ে থাকি যাস রে সে সব ভুলে । বাঁধিস না হয় নতুন ডালে বাসা, দোয়া মাগি এবার যেন পুরে রে তোর আশা ॥ আধেক পথে হাতও দিলি ছাড়ি , ভাঙলো তরীর হাল আমায় ডাকছে জানি কাল- তবুও আমি উথাল নদী একা একা আঁধার রাতে দেবো না হয় পাড়ি ॥ নতুন বাসায় বসে যদি আমায় মনে পড়ে , ফেলবি না তুই চোখের পানি তিন সত্যি এটাই মানি ভালোবেসে সেই বাসাটা নিজের মনের মতো করে নিস রে দোহাই গড়ে ॥

“খুশির দোল ” – – – – – – – – – – – — – – – — – – – – – – – – পীযূষ কান্তি দাস – – – – – – – – – – – – – – – – – – পলাশবনে আগুন লাগা এখন ফাগুনমাস , আমের বোলে গন্ধে আকুল দখিনা বাতাস ॥ কোকিল ডাকে কুহু কুহু গাছে কিশলয় , মনের সাথে মেলাও রে মন দূর হোক সংশয় ।। আয় রে সবাই একসাথে ভাই পরে হোলির সাজ , লাল হলুদ আর গোলাপিতে রঙিন হবো আজ ॥ যেদিকে চাই রঙিন সবাই আনন্দে হিল্লোল , মন হয়েছে মাতোয়ারা আজ যে খুশির দোল ॥